1. admin@ultimatenewsbd.com : adminsr : Admin Admin
  2. afridhasan.ahb@gmail.com : Shah Imon : Shah Imon
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৩০ অপরাহ্ন

সেতু উদ্বোধনের দাওয়াত নিয়ে রঙ দেয়ার চেষ্টা হচ্ছে: শামীম ওসমান

নিজস্ব প্রতিবেদক, ultimatenewsbd.com
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০২২
  • ১২১

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের প্রয়াত এমপি নাসিম ওসমানের নামে তৃতীয় শীতলক্ষ্যা সেতু উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্ত্রী পারভীন ওসমান ‘দাওয়াত না পাওয়ার’ যে অভিযোগ তুলেছেন সেটা নিয়ে কথা বলেছেন এমপি শামীম ওসমান। তিনি বলেছেন, নাসিম ওসমান সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমরা কেউই অনুষ্ঠানের কার্ড পাইনি। কিন্তু এটাকে অন্য রঙ দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। যেহেতু তিন দিনের মাথায় এটা করা হয়েছে তাই অনেকেই কার্ড পায়নি।

বুধবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ রাইফেলস ক্লাবে শ্রমিক লীগের ৩৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

১০ অক্টোবর দুপুরে ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওই সেতু উদ্বোধন করেন। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি নাসিম ওসমান জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম মেম্বার ছিলেন। তিনবারের এ এমপি জীবদ্দশায় শীতলক্ষ্যা সেতু নির্মাণের আপ্রাণ চেষ্টা করেছিলেন। অবশেষে এ সেতুটি নিমার্ণ হলেও তিনি তা দেখে যেতে পারেননি।নাসিম ওসমানের দুই ভাই সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমান অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকলেও যার নামে এই সেতু তার পরিবারের কোনো সদস্য অনুষ্ঠানে না থাকায় তা নিয়ে উঠে নানা প্রশ্ন।

এ বিষয়ে নাসিম ওসমানের সহধর্মিনী পারভীন ওসমান অনেকটা আক্ষেপের সুরে জানান, আমরা কেউ উপস্থিত ছিলাম না এটা নিয়ে অনেকেই অনেক কথা বলবেই। কেনো আমি অনুষ্ঠানে যাইনি তা আপনারাই বুঝে নেন। আমার স্বামীর নামে সেতু কিন্তু আমি কার্ড পাই না, ফোন পাই না এর চেয়ে দু:খজনক ব্যাপার তো আর হতে পারে না। আমার স্বামীর নামে সেতুর নামকরন করা হয়েছে। এ জন্য আমি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু স্বপ্নের এ সেতুর উদ্বোধন করা হলো অথচ আমাকে দাওয়াতটা পর্যন্ত দেয়া হলো না! আমি সত্যিই বিস্মিত ও ক্ষুব্ধ।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রয়াত এমপি নাসিম ওসমানকে কৃতজ্ঞচিত্রে স্মরণ করেন। তার স্মৃতিচারণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নাসিম ওসমান শেখ কামালের বন্ধু ছিলেন। ১৫ আগস্ট কালোরাত্রি। আগেরদিন ১৪ আগস্ট রাতে নাসিম ওসমানের বিয়ে হয়। নাসিম ওসমানের বিয়েতে কামালও (শেখ কামাল) গিয়েছিল। কামাল ফিরে আসে। যখনই নাসিম ওসমান শুনেছেন ১৫ আগস্টের ঘটনা ঘটেছে তখনই নবপরিণিতা স্ত্রী পারভীন ওসমানকে রেখেই হত্যার প্রতিবাদ জানাতে চলে গিয়েছিল ভারতে। সেখানে তিনি হত্যার প্রতিবাদ করে। আমি সব সময়ে সেগুলো স্মরণ করি। যদিও সে আমাদের পার্টি করতো না অন্য পার্টিতে গিয়েছিল। কিন্তু সবসময় আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতো, বড় বোন হিসেবে সম্মান করতো। সে বার বার আমার সঙ্গে দেখা করে সেতুটির কথা বলেছিল। যখন আমরা এটার কাজ শুরু করি তখনই তিনি চলে গেছেন। তিনি একজন বীরমুক্তিযোদ্ধা তাঁকে স্মরণ করতেই তার নামে সেতুটির নাম করেছি।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর
© আল্টিমেট কমিউনিকেশন লিমিটেডের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান   ***চলছে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম***
Theme Customized BY LatestNews