1. admin@ultimatenewsbd.com : adminsr : Admin Admin
  2. afridhasan.ahb@gmail.com : Shah Imon : Shah Imon
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৫৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ
আওয়ামী লীগ বর্গীর রূপ নিয়েছে: মির্জা ফখরুল অন্যান্য দেশের মতো আমাদেরও রিজার্ভ ব্যবহার করে চলতে হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী বিএনপিকে এখন ছাড় দিচ্ছি, ডিসেম্বরে দেব না: সেতুমন্ত্রী পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ আছে, দুর্ভিক্ষ হবে না: খাদ্যমন্ত্রী দেশের বিরুদ্ধে প্রপাগান্ডা চালানো ব্যক্তিদের ব্যাপারে কাজ করছে পুলিশ-ইন্টারপোল: আইজিপি ঋণ না পেলে রসাতলে যাবো, বিষয়টি তেমন নয়: বাণিজ্যমন্ত্রী ক্রান্তিকালের সুযোগ নিয়ে বিরোধী দলগুলো অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টির চেষ্টা করছে: প্রধানমন্ত্রী সম্ভাবনা জাগিয়েও হারল বাংলাদেশ বিএনপির লড়াই দেশবাসীর জন্য: মির্জা ফখরুল বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশের নামে চাঁদাবাজির একটা বড় প্রকল্প নিয়েছে: তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী আইনি কাঠামোয় ফিট হলে ভোটে দাঁড়াতে পারবেন খালেদা জিয়া: প্রধান নির্বাচন কমিশনার ১১ নভেম্বরের পর যুবলীগের দখলে থাকবে দেশ: পরশ খালেদাকে কারাগারে পাঠানোর চিন্তা-ভাবনা নেই: আইনমন্ত্রী পরিকল্পনা করে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো যাবে না: পরিকল্পনা মন্ত্রী সরকার চাইলে তিস্তা প্রকল্পে সহায়তা করবে চীন: চীনের রাষ্ট্রদূত গাইবান্ধার বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিতে আরো এক সপ্তাহ লাগবে: সিইসি

মানবিক অবস্থানে থেকে কাজ করছে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমান

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১
  • ১৫৪

সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন বাস্তবায়ন করতে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। প্রতিদিন নগরজুড়ে এ অভিযানে কাউকে করা হচ্ছে জরিমানা আবার কাউকে করা হচ্ছে সতর্ক।

কিন্তু এত অভিযানের পরও পেটের দায়ে দোকান খুলছেন অনেকেই।  

গত ৮ জুলাই সরকার ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে লন্ড্রি দোকান খোলা রাখেন ফয়জুননেসা। সেদিন দায়িত্ব পালনকারী ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী তাকে মোবাইল কোর্টে অর্থদণ্ডের সাজা দেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতে দোষ স্বীকার করলেও নিজের অসহায়ত্বের কথা তিনি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে প্রকাশ করেন।  

নগরীল আকবর শাহ থানার পূর্ব গামাপাড়ায় একটি সেলুনে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন শিবু দাশ। বাসা ভাড়া দিতে না পেরে বাধ্য হয়ে দোকান খুলেছেন। শিবুও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে স্বীকার করেছেন তার অসহায়ত্বের কথা।

শুধু এরাই নয় পেটের দায়ে এমন অনেকেই করছেন আইন অমান্য। দিচ্ছেন জরিমানাও। কিন্তু, সবার গল্পই করুন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী ৮ জুলাই সাজাপ্রাপ্তদের বিষয়টি চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমানকে অবহিত করেন। জেলা প্রশাসক সাথে সাথেই এসব অসহায় ব্যক্তির কাছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাহায্য পৌঁছে দিতে নির্দেশনা প্রদান করেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী ১৩ জুলাই তাদের প্রত্যেকের কাছে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকের পক্ষে সাহায্য পৌঁছে দেন এবং তাদের পাশে থাকার ব্যাপারে আশ্বস্ত করেন।  

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার গত ১ জুলাই জন সাধারনের চলাচলে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে। লকডাউনে মানুষের জীবন-জীবিকার সংকট প্রকট হয়। পেটের দায়ে বাধ্য হয়ে কঠোর বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে শ্রমজীবী মানুষ দোকানপাট খুলছেন। চট্টগ্রাম মহানগরের এসব শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক নিজেই।  

জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমান বলেন, সরকার ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়ন করতে আমাদের নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করতে হচ্ছে। এর মধ্যে কিছু মানুষ হয়তো পারিপার্শ্বিক বিভিন্ন কারণে দোকান খোলা রাখতে বাধ্য হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরীর অভিযানে বেশকয়েকজন দোকানি তাদের অভাবের কথা বলেন। আমি তাদেরকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করার নির্দেশ দিয়ে তা বাস্তবায়ন করি। তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমানের নির্দেশে গত ১ জুলাই থেকে প্রতিদিন গড়ে ১২ থেকে ১৫টি ভ্রাম্যমাণ আদালত চট্টগ্রাম মহানগরীতে দায়িত্ব পালন করছে। ‘দণ্ডিতের সাথে দণ্ডদাতা কাঁদে যবে, সর্বশ্রেষ্ঠ সে বিচার’- এই মন্ত্রে বিশ্বাস স্থাপন করেই চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে মানবিক অবস্থানে থেকে কাজ করে যাচ্ছে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর

© আল্টিমেট কমিউনিকেশন লিমিটেডের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান
Theme Customized BY LatestNews