1. admin@ultimatenewsbd.com : adminsr : Admin Admin
  2. afridhasan.ahb@gmail.com : Shah Imon : Shah Imon
সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৩:৩৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ
জ্বালানি ঘাটতি কমাতে সরকার অফশোর গ্যাস উত্তোলন বেছে নিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিদের শপথ বুধবার বিদেশিদের কাছে নালিশের মাশুল বিএনপিকে দিতে হবে: ওবায়দুল কাদের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে নতুন চেয়ারম্যান বিচারপতি আবু আহমেদ জমাদার অবসরের ৩ বছরের মধ্যে সংসদ নির্বাচন করতে পারবেন না সরকারি কর্মকর্তারা: হাইকোর্ট দেশের উন্নয়ন মসৃণ করতে চীনের আরও সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী ৩ জানুয়ারি মাঠে নামছে সশস্ত্র বাহিনী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নতুন এপিএস হলেন খালেদা জেসমিন পাগলা মসজিদের দানবাক্সে মিললো ৬ কোটি ৩২ লাখ টাকা ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ১৭,৭০০ বাংলাদেশ বেগম রোকেয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছে: প্রধানমন্ত্রী

দ্রুত ক্ষমতা হস্তান্তর না করলে সরকারের পরিণতি ভয়াবহ হবে: বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ultimatenewsbd.com
  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৬ মার্চ, ২০২২
  • ৯৮

দ্রুত নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর না করলে সরকারের পরিণতি ভয়াবহ হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিএনপি।

শনিবার (২৬ মার্চ) স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে দলের র‌্যালিপূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে এসব কথা বলেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপির র‌্যালি উপলক্ষে দুপুর ১টা থেকে নয়া পল্টনের সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয় পুলিশ। ফলে মতিঝিল, কাকরাইল, শাহজাহানপুর, শান্তিনগরসহ বিভিন্ন সড়কে ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হয়। র‌্যালি উপলক্ষে এই এলাকায় পুলিশসহ সাদা পোশাকের সদস্যরা মোতায়েন ছিল।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই র‍্যালির মাধ্যমে আমরা অবৈধ সরকারের কানে যে বাণী পৌঁছে দিতে তা হলো—তোমার দিন শেষ। এই র‍্যালি থেকে আমরা হাসিনা (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) এবং তার সরকারকে হুঁশিয়ার করে দিতে চাই, এখনও সময় আছে—পদত্যাগ করুন, দ্রুত নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনগণের প্রতিনিধিদের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন।

‘অন্যথায় আপনারা পালাবারও পথ খুঁজে পাবেন না। সব ডিক্টেটর, সব স্বৈরাচারী, সব ফ্যাসিবাদীর যে পরিণতি হয়েছে, আপনাদেরও সেই একই পরিণতি হবে। আসুন এই লক্ষ্যে আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হই’—যোগ করেন বিএনপি মহাসচিব।

স্বাধীনতা দিবসের দিন জিয়াউর রহমানসহ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, “আজকে সারা দেশের মানুষ স্বাধীনতার ৫০ বছর পরে এই আক্ষেপ করছে যে কী পেয়েছি? আজকে আমাদের কথা বলার স্বাধীনতা নেই, নিজেদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করবার স্বাধীনতা নেই। মানুষের গণতান্ত্রিক কোনও অধিকার নেই।”

দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ট্রাকের ওপর অস্থায়ী মঞ্চ করে এই সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করা হয়। ২৫ মিনিট সমাবেশ করে র‍্যালি শুরু হয়। নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে র‍্যালি শুরু হয়ে বিজয় নগর ও তোপখানা রোড হয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এসে শেষ হয়। র‍্যালিতে রাজধানীর বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড থেকে নেতাকর্মীরা ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র মিছিল নিয়ে অংশ নেয়। তাদের হাতে জাতীয় পতাকার পাশাপাশি জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি সংবলিত প্ল্যাকার্ড ছিল।

ব্যান্ড সংগীত দলের সুরের মূর্ছনা, পুরনো ঢাকার ঘোড়ার গাড়ি, মুক্তিযুদ্ধের সময়ে মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বের নানা দৃশ্য প্রদর্শন, লাল-সবুজ-হলুদ ক্যাপ পরা নেতাকর্মীদের স্বাধীনতার র‍্যালি দেখতে ফুটপাতে দুই পাশে মানুষজনও ছিল ব্যাপক। তারা করতালি দিয়ে র‍্যালিকে শুভেচ্ছা জানাতে দেখা যায়।

র‍্যালি শুরুর দুই ঘণ্টা আগে থেকেই ফকিরেরপুল থেকে কাকরাইলের নাইটিঙ্গেল রেস্তোরাঁ মোড় পর্যন্ত তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না, হাজার হাজার নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে র‍্যালি জনসমাবেশে রূপ নেয়। র‍্যালির অগ্রভাগ যখন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে তখন শেষ ভাগ কাকরাইলের নাইটিঙ্গেল মোড় অতিক্রম করেছিল।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আজকে সময়ের দাবি, জনগণের দাবি এই সরকারকে হটাতে হবে। অনতিবিলম্বে এই সরকারের পদত্যাগ চাই, নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটা নির্বাচন চাই।”

স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আজকে সত্য বলতে পারে না গণমাধ্যম। ডিজিটাল আইন, সেই আইন-এই আইন করে আজকে বাংলাদেশের গণমানুষের মুখকে চেপে ধরা হয়েছে। আসল কোনও সংবাদ দেশের মানুষ পায় না। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে দেশের কি অবস্থা আজকে সেটা পত্রপত্রিকায়-মিডিয়ায় রিফলেক্ট হচ্ছে না।’

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

© আল্টিমেট কমিউনিকেশন লিমিটেডের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান   ***চলছে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম***
Theme Customized BY LatestNews